সর্বশেষঃ
ভান্ডারিয়ায় ড্রীম বাংলা ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ সাইদ চৌধুরীর নগত অর্থ সহায়তা[][][]ভাণ্ডারিয়ায় মুজিববর্ষের ঘরের কাজ পরিদর্শনে বিভাগীয় কমিশনার[][][]খালেদা জিয়ার লিভার ঠিকভাবে কাজ করছে না'[][][]আলজাজিরার সাংবাদিককে ‘জিহাদী’ বলে হিন্দুত্ববাদীদের আক্রমণ[][][]পরীকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা : প্রধান অভিযুক্ত নাসিরসহ গ্রেফতার ৫[][][]আগৈলঝাড়ায় ইসলামী এজেন্ট ব্যাংকিং কেন্দ্র উদ্বোধন[][][]আগৈলঝাড়ায় সাংবাদিক পরিচয়ে তিন প্রতারক আটক, মুচলেকা দিয়ে মুক্ত[][][]মাদরাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানের করতে কাজ করছে আ'লীগ সরকার--এমপি জ্যাকব[][][]৩০ জুন পর্যন্তবাড়লো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি[][][]স্বাস্থ্য নয়, অন্যান্য খাতের কোটি টাকা কানাডায় চলে গেছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

রাজাপুরে আদালতের নির্দেশে ১৮ মাস পর হত্যার মামলা রেকর্ড

এনামুল হক,রাজাপুর (ঝালকাঠি) থেকেঃ

ঝালকাঠির রাজাপুরের বড়ইয়া ইউনিয়নের কলাকোপা গ্রামের আলোচিত বাবুল হাওলাদারের হত্যার ঘটনার দীর্ঘ ১৮ মাস ২০ দিন পরে আদালতের নির্দেশে রাজাপুর থানা পুলিশ হত্যা মামলা রেকর্ড করেছে। শুক্রবার রাতে বাবুলের মা মোসাঃ আনোয়ারা বেগমের আদালতে দায়ের করা মামলা এজাহার হিসেবে গ্রহন করে পুলিশ। মামলায় ১১ জনকে আসামি করে এ হত্যা মামলা দায়ের করেন তিনি। বাবুল হাওলাদার উপজেলার চর উত্তমপুর গ্রামের মৃত ইউসুব আলী হাওলাদারের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মোসাঃ আনোয়ারা বেগমের ছেলে বাবুল দীর্ঘ ১৭ বছর প্রবাসে থাকার পরে দেশে আসেন। এলাকার একটি কুচক্রি মহল বাড়িতে এসে অন্যায় ভাবে বাবুলের কাছে চাঁদা দাবি করে আসছিলেন। বাবুল চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানাতে তারা ক্ষিপ্ত হয়। পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ১৮ই অক্টোবর সন্ধ্যার পরে বাবুল বড়ইয়ায় তার মামার বাড়ি থেকে নিজ বাড়িতে ফিরে আসছিল। পথিমধ্যে কলাকোপা গ্রামের রাজ্জাক আকনের বাড়ির কাছে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকে সজিব, কাইয়ুম. মনির, তরুন ও ইলিয়াসসহ অজ্ঞাত আসামিরা পরিকল্পিত ভাবে বাবুলকে ধরে মারধরসহ শ্বাসরোধ করে হত্যা করে একটি ডোবায় ফেলে দেয়। আসামিরা প্রভাবশালী হওয়ায় ওই ঘটনায় তখন থানা পুলিশ হত্যা মামলা না নিয়ে একটি অপমৃত্যুর মামলা রেকর্ড করে বাদীকে হত্যা মামলা বলে সান্তনা দেয়। পরে বিষয়টি জানতে পেরে বাবুলের মা মোসাঃ আনোয়ারা বেগম চলতি এপ্রিল মাসের ২ তারিখ আদালতে হত্যার ঘটনায় মামলা করলে আদালত মামলা এজাহার হিসেবে রেকর্ডের নির্দেশ দিলে পুলিশ এজাহার গ্রহন করে।

রাজাপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম জানান, বাদি মোসাঃ আনোয়ারা বেগম গত ২ এপ্রিল আদালতে মামলা করলে আদালত তা এজাহার হিসেবে গ্রহনের দির্দেশ দেয়। আদালতের নির্দেশনা পেয়ে শুক্রবার রাতে এজাহার গ্রহন করে মামলা রেকর্ড করা হয়। মামলার কোন আসামীকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। তবে আসামিদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

0Shares