সর্বশেষঃ
ডেইলি অনলাইন বাংলাদেশ ২৪.কম এর পক্ষ থেকে ঈদ শুভেচ্ছা[][][]ভান্ডারিয়াবাসীকে পবিত্র ঈদুল-ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এহসাম হাওলাদার[][][]মেট্রোরেলের নির্মাণকাজের অগ্রগতি ৬৩ ভাগ : সেতুমন্ত্রী[][][]ভান্ডারিয়া উপজেলাবাসীকে চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলামের ঈদ উপহার[][][]খালেদার চিকিৎসা নিয়ে সরকার খোড়া যুক্তি দিচ্ছে : মির্জা ফখরুল[][][]নাজিরপুরে লকডাউনে কিস্তি আদায়! বিপাকে গ্রাহক[][][]ভান্ডারিয়াবাসীকে পবিত্র ঈদুল-ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিএনপির নেতা ম.মহিউদ্দিন খান দিপু[][][]ঐতিহাসিক শোলাকিয়ায় ঈদের জামাত হচ্ছে না[][][]দেশে করোনায় মৃত্যু ১২ হাজার ছাড়াল[][][]কাউখালীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ইলেকট্রিশিয়ানের মৃত্যু

ভাণ্ডারিয়া শাহাবুদ্দিন ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার সাইনবোর্ড চুরি

ভাণ্ডারিয়া প্রতিনিধিঃ

 ভান্ডারিয়া শাহাবুদ্দিন ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসার ফটকের প্রধান সাইনবোর্ড কেটে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার দিবাগত রাতের কোন এক সময় সাইনবোর্ডটি চুরি হয় ।

এ বিষয়ে মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা আসাদুজ্জামান ফারুকী ভান্ডারিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ১৯৫৫ সালের ভান্ডারিয়ার লঞ্চঘাট এলাকার আলহাজ্ব আনসার উদ্দিন আহম্মেদ তার বাড়ির পাশে জমি দান করে ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা নামের একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৈরি করে চালু করেন।

পরবর্তীতে মাদ্রাসার উন্নয়ন কাজের জন্য স্থানীয় সাবেক জজ শাহাবুদ্দিন সাহেব ২৫ হাজার টাকা মাদ্রাসায় দান করলে স্থানীয় মাদ্রসারা কর্তৃপক্ষ উক্ত ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার নাম শাাহাবুদ্দিন ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা নাম করণ করে যা বর্তমানে এই নামেই চলে আসছে।

কিন্তু একটি মহল মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব আনসার উদ্দিন আহম্মেদের নাম পরিবর্তনের জন্য নানা ভাবে ষড়যন্ত্র করছে এবং সাইনবোর্ড থেকে প্রতিষ্ঠাতার নাম মুছেতে পরিচালনা কমিটির একটি অংশের উপস্থিতিতে একটি রেজুলেশন তৈরী কের । পরে এই বিষয়ে মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব আনসার উদ্দিন আহম্মেদের পুত্র মাদ্রাসার ম্যানিজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য আল আমিন আহম্মেদ রেজুলেশন বাতিলের দাবী জানিয়ে এবং প্রতিষ্ঠাতার নাম আলহাজ্ব আনসার উদ্দিন আহম্মেদ রাখার জন্য গত ২৩ আগষ্ট ২০২০ তারিখে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

এরপরই একটি পক্ষ প্রতিষ্ঠাতার নাম সম্ভলিত মাদ্রাসার প্রধান ফটকের মেইন সাইনবোর্ডটি কেটে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি গোলাম সরোয়ার জোমাদ্দার জানান, মাদ্রাসার সাইনবোর্ড কেটে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে তারা পুলিশ প্রশাসনের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন।

0Shares